ভাষাবীরের সন্তান হিসেবে আমার কাছে এ দিবসটির অনুভূতি ভিন্নমাত্রার ডা. দীপু মনি

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

অমর একুশে, শহীদ দিবস এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে চাঁদপুর জেলাবাসীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষামন্ত্রী, চাঁদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ভাষাবীর এমএ ওয়াদুদের কন্যা ডাঃ দীপু মনি। তিনি এক শুভেচ্ছাবার্তায় বলেন, বাঙালির গর্ব করার যে ক’টি উপলক্ষ রয়েছে তার মধ্যে অমর একুশে ফেব্রæয়ারি একটি। যে দিবসটি ১৯৯৯ সাল থেকে শহীদ দিবসের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে উদ্যাপিত হয়ে আসছে। আর বাঙালির এ অর্জনও বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে। দীপু মনি বলেন, একুশে ফেব্রæয়ারি এখন আর শোক নয়, শক্তি, মর্যাদা, গৌরব ও অহঙ্কারের প্রতীক। এই ভাষা আন্দোলনের সিঁড়ি বেয়েই পরবর্তীতে স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মহান মুক্তিযুদ্ধ। যে যুদ্ধের চূড়ান্ত বিজয়ে আমরা স্বাধীন বাংলাদেশ পেয়েছি এবং মাতৃভাষা বাংলাও রাষ্ট্রীয়ভাবে প্রতিষ্ঠা পেয়েছে। তাই বাঙালির জীবনে একুশে ফেব্রæয়ারির গুরুত্ব অপরিসীম। বিশেষ করে আমি একজন ভাষাবীরের সন্তান হিসেবে আমার কাছে এ দিবসটির অনুভূতি ভিন্নমাত্রার। আমার বাবা হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সান্নিধ্য পেয়েছেন। বাঙালির দু’টি বিশাল অর্জন তথা অস্তিত্বের ইতিহাস রচনায় আমার বাবার অসামান্য অবদানের বিষয়টি মনে পড়লে তাঁর সন্তান হিসেবে গর্বে আমাদের বুক ভরে যায়। বায়ান্নর ভাষা আন্দোলনে আমার বাবার যেমনি অবদান ছিলো, তেমনি মহান মুক্তিযুদ্ধেও তাঁর অবদান ছিলো অপরিসীম। আজকের এইদিনে আমি ভাষা শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানাই। শ্রদ্ধা জানাই জাতির পিতাসহ সকল ভাষাসৈনিকের প্রতি। আসুন আমরা আজকের দিনে শপথ নেই সকল ষড়যন্ত্র ও অপশক্তিকে রুখে বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করে দেশের অগ্রযাত্রার পথচলার সাথী হই। জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু।