সখিপুরে জমি দখলের চেষ্টা, বাঁধা দেয়ায় দুই চাচাতো বোনকে পিটিয়ে হাসপাতালে

ভেদরগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর ইউনিয়নে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে দুই চাচাতো বোনকে পিটিয়ে জখম করার অভিযোগ উঠেছে মস্থানীয় বাবুল কাজির বিরুদ্ধে। রোববার সকাল ৭টার দিকে উপজেলার নৈমুদ্দিন সরদার কান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহতরা ওই গ্রামের মৃত আব্দুল খালেক কাজির মেয়ে নাজমা বেগম (৪০) ও আসমা বেগম (৩৫)। এ ঘটনায় রোববার (১০মে) সন্ধ্যায় সখিপুর থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছে ভুক্তভোগী পরিবার।

ভুক্তভোগী পরিবার ও স্থানীয় সূত্র জানায়, সখিপুর থানার নঈমুদ্দিন সরদারকান্দি গ্রামের নাজমা বেগম গংদের সঙ্গে তার চাচাতো ভাই বাবুল কাজীর দীর্ঘদিন ধরে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। ১৮ শতাংশ পরিমানের ঐ জমি নিয়ে এলাকায় অনেকবার সালিশ হয়েছে। পরে শনিবার আবারো সালিশ হয়। কিন্তু জমির পরিবর্তে জমি বা টাকা দেয়ার বিষয়ে কোন সমাধান হয় নি।পরেরদিন রোববার সকালে বাবুল কাজীর লোকজন ঐ বিরোধপূর্ণ জমিটিতে ঘর তুলতে যায়। তখন নাজমা বেগম ও তার বোনেরা প্রতিবাদ করলে তাদের ওপর দেশীয় অস্ত্র দিয়ে হামলা চালানো হয়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাদেরকে ভেদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে পাঠান।

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার আকরাম এলাহী বলেন, নাজমার মাথায় গভীর ক্ষত হয়েছে। বেশ কয়েকটি সেলাই লেগেছে তার। আর আসমার বাম হাত ভেঙে গেছে। নাজমা ও আসমার চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

কিন্তু এ বিষয়ে বাবুল কাজীর স্ত্রী শাহানারা বেগম বলেন, এ জমিতে আমরা ২৬ বছর ধরে বসবাস করছি। তাদেরকে বলেছি অনত্রে জমি দিয়ে দেবো অথবা টাকা দিয়ে দেবো। কিন্তু তারা কোন কথা না শুনে রাস্তার পাশে হওয়ায় এ জমি দখল করতে চায়। মুরুব্বিদের দেয়া সমাধান তারা মানে না। আজকে সকালে ঘর তুলতে গেল তারাই আগে হামলা করে।

সখিপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এনামুল হক বলেন, জমি নিয়ে মারামারির ঘটনায় একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত চলছে।