শরীয়তপুরে পূর্ব শত্রুতার জেরে প্রবাশীকে কুপিয়ে হত্যা

 

শরীয়তপুর প্রতিনিধি।।
শরীয়তপুর সদর উপজেলার শৌলপাড়ায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে দাদন খলিফা (৩০) নামে এক প্রবাশীকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার সময় এ ঘটনা ঘটে। তবে হত্যার সাথে জারিত কাউকে এখনো আটক করতে পারেনি পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দাদন খলিফা পালং উপজেলার শৌলপাড়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের গয়ঘর গ্রামের সেকেন্দার খলিফার পুত্র।
পরিবারের সচ্ছলতা ফিরিয়ে আনার জন্য দাদন খলিফা ২০১৪ সালে মালয়েশিয়া কর্মের জন্য পারি জমান। মধ্যপ্রাচ্যের দেশ মালয়েশিয়ায় দীর্ঘ ৬ বছর থাকার পর মা-বাবা এবং দেশের টানে গত ৩০ মার্চ বাংলাদেশে চলে আসে।
গতকাল বৃহস্পতিবার ১৫ এপ্রিল রাত সাড়ে নয়টার দিকে তারাবির নামাজ শেষ করে দাদন খলিফা বাড়ি যাওয়ার পথে কয়েকজন স্থানীয় সন্ত্রাসী বাহিনী তাকে তুলে নিয়ে নদীর ধারে নির্জন স্থানে দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে।
দাদন খলিফার চিৎকারের শব্দ শুনে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে।
রোগীর অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য দ্রুত ঢাকা পেরন করেন। উন্নয়ন চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেওয়ার পথে দাদন খলিফার মৃত্যু হয়।

দাদন খলিফার পিতা সেকেন্দার খলিফা বলেন, এসকান্দার সরদারদের সাথে আমাদের পুরানো শত্রুতা আছে কিন্তু আমরা তা ভুইলা গেছি। আমার ছেলে দাদন কিছুদিন হয় বিদেশ থেকে আসছে এসকন্দার সরদার চেয়ারম্যানি নির্বাচন করবো তাই তার সাথে আমার ছেলে থাকতে বলছিলো আমার ছেলে না কইরা দিছে, তাই এসকান্দার সরদারের নির্দেশে আমার ছেলেকে মাইরা ফালাইলো।

পালং মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আক্তার হোসেন বলেন, দাদন খলিফা মারা গেছে শুনেছি আহত অবস্থায় দাদন খলিফার বক্তব্য পেয়েছি। রাতেই মামলার হয়েছে এ জগন্যতম নির্মম কাজের সাথে যারা জড়িত রয়েছে তারা যতই শক্তিশালী হোক না কেন তাদেরকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে।