চিকিৎসা সেবায় অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করছে নড়িয়ার মাজেদা হাসপাতাল

 

মোহাম্মাদ জামাল মল্লিক, শরীয়তপুর।।
বেসরকারি পর্যায়ে মানব সেবা ও চিকিৎসা সেবায় অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করছে শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার মাজেদা হাসপাতাল। এটাকে বলা হয় গরীরের হাসপাতাল। করোনা ভাইরাস সংক্রমণের মধ্যেও মাজেদা হাসপাতাল অপারেশন ব্যবস্থাসহ মাঝে মধ্যে ফ্রি ও স্বাভাবিক সেবা প্রদান করে যাচ্ছেন। বেসরকারি ও ব্যক্তি পর্যায়ে
শরীয়তপুরের মধ্যে বৃহৎ এ সেবাধর্মী হাসপাতালে অতি স্বল্প খরচে সকল ধরনের চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয় বলে মাজেদা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন।

মাজেদা হাসপাতালের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এবং মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডাঃ খালেদ শওকত আলী জানান, আমার বাবা সাবেক ডেপুটি স্পিকার, নড়িয়া ও সখিপুরের ৬ বারের সাবেক সাংসদ জাতীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা, মহুম কর্নেল শওকত আলীর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করাই হচ্ছে আমাদের মুল উদ্দেশ্য। মাজেদা হাসপাতাল এবং জাতীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা কর্নেল শওকত আলীর পরিবার সেই লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সামনে নিয়েই কাজ করে যাচ্ছে।

স্থানীয়রা জানান, মাজেদা হাসপাতালে স্বল্প খরচে সকল ধরনের রোগের চিকিৎসার ব্যবস্থা রয়েছে।
অসহায় ও গরীব রোগীদের জন্যও বিনা খরচে চিকিৎসার ব্যবস্থা রয়েছে। মাজেদা হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের মধ্যে মাকসুদা বেগম (৫০) বলেন, অল্প খরচে ভালো চিকিৎসা সেবা মাজেদা হাসপাতালে। এখানে সকল ধরনের সেবা অতি সহজে পাওয়া যায়।

এদিকে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে মাজেদা হাসপাতালে করোনা আইসোলেশন ওয়ার্ড করা হয়েছে। ডাক্তার, নার্স ও কর্মকর্তা কর্মচারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হাসপাতালের পক্ষ থেকে পিপিইসহ স্বাস্থ্য সুরক্ষার সকল প্রকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করে যাচ্ছে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ এই দুর্যোগের মধ্যেও মাজেদা হাসপাতালের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এবং মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডাঃ খালেদ শওকত আলী ও তার সহধর্মিণী ডা.তানিয়া খালেদ চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। মাজেদা হাসপাতালে অবস্থান করে চিকিৎসা নিতে আসা রোগী এবং ডাক্তার, নার্সসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সকল প্রকার সহযোগিতা করে যাচ্ছেন।

এ ব্যাপারে মাজেদা হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা জাতীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম কর্নেল শওকত আলীর সহধর্মিণী মাজেদা হাসপাতালের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মাজেদা শওকত আলী
সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, করোনার ভাইরাসের মত দুর্যোগের মধ্যেও মাজেদা হাসপাতালে সকল প্রকার চিকিৎসা সেবা চালু রয়েছে। বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা রোগীরা বহির্বিভাগ চিকিৎসা সেবা এবং অন্তঃবিভাগে ভর্তি হচ্ছেন। প্রতিনীয়ত অসহায় রোগীদের ফ্রি চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছি।