শরীয়তপুরে সিএনজি শ্রমিকদের মারধর ও গাড়ি ভাঙচুরের প্রতিবাদে মানববন্ধন

 

মামুন মাদবর, শরীয়তপুর থেকে।।
শরীয়তপুর বাস মালিক ও শ্রমিক কর্তৃক থ্রী- হুইলার (সিএনজি) ও অটোরিক্সা চালকগনকে বিভিন্ন রাস্তায়, চলাচলের সময় মারধর, গাড়ী ভাঙচুর ও নির্যাতনের প্রতিবাদে জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (১৪ জুন) বেলা ১১ টায় জেলা প্রশাসক চত্বরে মানববন্ধন শেষে জেলা প্রশাসক মোঃ পারভেজ হাসানের কাছে এই স্মারকলিপি প্রদান করেন শ্রমিক নেতারা।
মানববন্ধনে শ্রমিক নেতারা বক্তব্যে বলেন, বর্তমান সরকারের চলমান উন্নয়ন ধারা অব্যাহত রাখার লক্ষ্যে উন্নত যানবাহন থ্রী – হুইলার, অটোরিকশা (সিএনজি) এল.পি.জি, পেট্রোল চালিত পরিবহন আমদানি করা সরকারের পরিকল্পনার একটি অংশ। শহর উপশহর এমনকি প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলের জনসাধারণের যাতায়াত ব্যবস্থার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে স্বালানি সাশ্রয়ী। পরিবহন হিসাবে এল.পি.জি চালিত থ্রী- হুইলার (সিএনজি), অটোরিকশা মেকার্সকোড বরাদ্দের মাধ্যমে শুক্ষ পরিশোধের মাধ্যমে বাংলাদেশে আমদানি করে আসছে এবং বিভিন্ন জেলায় ডিলারশীপের মাধ্যমে জনগণের নিকট বিক্রয় করা হয়। বিক্রয়কৃত থ্রী- হুইলার মালিকগণ বি.আর.টি.এ এর নির্ধারিত এ্যাসেসমেন্ট চালান ফরমে ব্যাংকে চালান জমা দিয়ে আসছে, যা রেজিষ্ট্রেশন প্রাপ্তির ক্ষেত্রে প্রধান ও অন্যতম অংশ বটে। আমরা দীর্ঘদিন যাবৎ আপনার (জেলা প্রশাসক) নিকট রেজিষ্ট্রশন ও রুট পারমিটের আবেদন করে আসছি। আমাদের রেজিষ্ট্রেশন ও রুট পারমিট না থাকায় রাস্তায় চলাচলে নানা রকম বাধা ও মামলা এবং বাস মালিক সমিতি কর্তৃক হামলার স্বীকার হয়ে আসছি। বাস মালিক ও শ্রমিকদের বর্ণিত অহরহ ঘটনার প্রেক্ষাপট ও ধারাবাহিকতায় গত ১৩/০৬/২০২১ ইং তারিখে থ্রী – হুইলার, অটোরিকশা চালকগনকে বিভিন্ন রাস্তায় চলাচলের সময় শরীয়তপুর বাস মালিক ও শ্রমিকরা মারধর ও গাড়ী ভাঙচুর করিয়া শারীরিক ও আর্থিকভাবে বিপুল পরিমানে ক্ষতি সাধন করে। আমরা যারা থ্রী হুইলার, অটোরিকশা চালাই তারা অত্যন্ত নিম্ন আয়ের শ্রমিক।
আমরা কিস্তির মাধ্যমে গাড়ী ক্রয় করিয়া আমাদের পরিবারের ভরণ-পোষণ ও কিস্তি প্রদান করিয়া থাকি। এর মাধ্যমে উপার্জিত সামান্য রোজগার দিয়ে আমরা আমাদের পরিবারের জীবিকা নির্বাহ করিয়া থাকি। দীর্ঘদিন যাবৎ বাস মালিক শ্রমিকদরে অত্যাচারে আমাদের এই অটোরিকশা দ্বারা পরিবারের ভরণ-পোষণ করা সম্ভব হচ্ছে না। যদি এই অবস্থা বিরাজমান থাকে তাহলে আমাদের ভবিষ্যতে পরিবার পরিজন নিয়ে পথে নামতে হবে। বাস মালিক ও বাস শ্রমিকগন তাদের হীন লোভ লালসা চরিতার্থ করার নিমিত্ত আমাদের রোজগারের পথে যে ক্রমাগত বাধার সৃষ্টি করিয়া আসিতেছে তাহার তীব্র নিন্দা জানাই।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন- শরীয়তপুর জেলা সি.এন.জি. অটোরিকসা মালিক সমিতি সভাপতি এ্যাড আবুসাইদ, সাধারণ সম্পাদক খানএ মামুন রুবেল, শরীয়তপুর জেলা সি.এন.জি. অটোরিকসা শ্রমিক ইউনিয়ন ফরিদপুর ৫ এর সভাপতি এ্যাড. রোকন সরদার, সাধারণ সম্পাদক মনির হোসেন খান, সহ সভাপতি মাহাবুব আলম রাসেল, সহ সাধারণ সম্পাদক ইয়ার খান, কোষাধক্ষ মোঃ সুমন চৌকিদার প্রমূখ।